স্কুলের শিক্ষকদের প্রাইভেট টিউশন করা নিয়ে নতুন পদক্ষেপ! তাহলে কি বন্ধ হতে চলেছে শিক্ষকদের প্রাইভেট টিউশন?

88
স্কুলের শিক্ষকরা প্রাইভেট টিউশন করাচ্ছেন কি না তা খতিয়ে দেখার জন্যে জারি হলো ভিজিলেন্স

স্কুলে শিক্ষকতা করার পাশাপাশি সরকারি স্কুলের শিক্ষকরা বাড়িতে বসেও টিউশনি পড়ান। এই চিত্র রাজ্যের বিভিন্ন জায়গাতেই দেখা যায়। সকাল বিকেল টিউশনি মাঝে স্কুলের চাকরি। সব মিলিয়ে যেন টিউশনি ব্যবসা শুরু করেছেন।

কিন্তু এবার সেই ব্যবসায় লাগাম টানতে উদ্যোগ নিল প্রাইভেট টিউটর ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েশন। শিক্ষকরা যতই নির্দেশিকা মেনে টিউশন না পড়ানোর এগ্রিমেন্টে সই করুন না কেন বাড়িতে লুকিয়ে টিউশনি পড়ান। তাই শিক্ষকদের টিউশনি ব্যবস্থা ক্ষতিয়ে দেখার জন্য ভিজিলেন্সে দাবি করল অ্যাসোসিয়েশন। এই দাবিতে রাজ্য জুড়ে বিভিন্ন জায়গায় আন্দোলনের ডাক দিয়েছে অ্যাসোসিয়েশন।

তবে শুধু আন্দোলন নয় কর্মরত শিক্ষকরা বাড়িতে পড়ালে তাঁদের পড়ানো বন্ধ করতে ধর্নাতে বসারও সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে খবর। তাই প্রতিটি জেলা শাখার প্রতিনিধিরা এই বিষয়ে জেলা শাসকের অফিসে একটি করে ডেপুটেশন জমা দিয়েছে।

অ্যাসোসিয়েশনের সদস্যদের কথায় চাকরির পাশাপাশি টিউশনি পড়িয়ে মোটা টাকা আয় করেন শিক্ষকরা। তাই ভিজিলেন্স ব্যবস্থা চালু করলেই সমস্ত বিষয় প্রকাশ্যে চলে আসবে।

রাজ্য শিক্ষা দফতরের পক্ষ থেকে অনেক দিন আগেই কর্মরত শিক্ষকদের বাড়িতে বসে পড়ানো নিষিদ্ধ করে দেওয়া হয়। কিন্তু সেই নিষেধাজ্ঞাকে বুডো় আঙুল দেখিয়ে টিউশনি করছেন রাজ্য শিক্ষকরা।