কলকাতা বইমেলায় বিক্রি ২১ কোটি !! এবং আরো কিছু অবাক করা ঘটনা…

563

ঘণ্টা বাজিয়ে কলকাতার ঐতিহ্যবাহী আন্তর্জাতিক বইমেলা শেষ হলো সোমবার রাত ৯টায়। শুরু হয়েছিল ৩১ জানুয়ারি, ঘণ্টা বাজিয়েই। শেষ দিনে দেওয়া হয় বইমেলায় বিভিন্ন বিভাগে বিজয়ীদের পুরস্কার। পুরস্কার তুলে দেন ভারতে নিযুক্ত গুয়াতেমালার রাষ্ট্রদূত জিয়োবান্নি কাসতিয়ো। এবারের বইমেলার থিম কান্ট্রি ছিল গুয়াতেমালা।
বাংলাদেশ প্যাভিলিয়ন এবারে বইমেলার সেরা জনপ্রিয় প্যাভিলিয়ন হিসেবে পুরস্কার পায়।
বইমেলার উদ্যোক্তা পাবলিশার্স অ্যান্ড বুক সেলার্স গিল্ডের পরিচালক শুধাংশু শেখর দে বলেছেন, এবারের বইমেলা গতবারের তুলনায় একদিন কম হলেও বিক্রি বেড়েছে। বইমেলার দিনগুলোতে আবহাওয়া ছিল ভাল। এবারের বইমেলায় বেড়েছে দর্শক সংখ্যা। এবার বই বিক্রি হয়েছে ২১ কোটি টাকার । আর বইমেলা দেখতে এসেছিল ২৩ লাখের ওপরে মানুষ। তিনি আরও বলেছেন, আগামি বছরের বইমেলার থিম কান্ট্রি হচ্ছে রাশিয়া।

পশ্চিমবঙ্গে প্রচুর পুলিশ কনস্টেবল নিয়গ ২০১৯ – আবেদন করুন

এবারের বইমেলায় নদীয়ার চাকদহের এক শিক্ষক দেবব্রত চট্টোপাধ্যায়র একাই ২ লাখ ৭২ হাজার টাকার বই কিনে নতুন এক রেকর্ড গড়েছেন। তাঁকে বইমেলার সমাপ্তি অনুষ্ঠানে আয়োজক সংস্থা পুরস্কৃত করেন। তিনিও বলেছেন, তাঁর বাড়ির ব্যক্তিগত লাইব্রেবীতে ১২ থেকে ১৪ হাজার বই রয়েছে। এবার তিনি নতুন বই দিয়ে তাঁর লাইব্রেরি সাজিয়ে তুলবেন।

৩১ জানুয়ারি বিকেলে কলকাতার সল্ট লেকের সেন্ট্রাল পার্কে ঘণ্টা বাজিয়ে বইমেলার উদ্বোধন করেছিলেন গুয়াতেমালার প্রখ্যাত সাহিত্যিক অধ্যাপক ইউডা মোরেস। বইমেলার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আর বিশেষ অতিথি ছিলেন গুয়াতেমালার ভারতে নিযুক্ত রাষ্ট্রদূত জিয়োবান্নি কাসতিয়ো। তিনিই অনুষ্ঠান মঞ্চে ঘণ্টা বাজিয়ে এবারের বইমেলার সমাপ্তি ঘোষণা করেন।

এবারের এই কলকাতা বইমেলা ৪৩ বছরে পা দিয়েছে। এই বইমেলার আয়োজক কলকাতার পাবলিশার্স অ্যান্ড বুক সেলার্স গিল্ড।
এবারের বইমেলায় বাংলাদেশ , যুক্তরাষ্ট্র, রাশিয়া, ভিয়েতনাম, জাপান, চীন, ইরান, কোস্টারিকা, স্পেন, স্কটল্যান্ড, অস্ট্রেলিয়া, আর্জেন্টিনাসহ বিশ্বের ২১টি দেশ ও দেশের প্রকাশকেরা। যোগ দিয়েছে ভারতের বিভিন্ন রাজ্যের প্রকাশকরাও। এবার বইমেলায় সব মিলিয়ে ৮০০ স্টল হয়েছে। এর মধ্যে ২০০টি লিটল ম্যাগাজিনের স্টল।