শ্রীহরিকোটা সতীশ ধাওয়ান স্পেস সেন্টার থেকে তৈরী হলো নতুন ইতিহাস!

494
শ্রীহরিকোটা সতীশ ধাওয়ান স্পেস সেন্টার থেকে তৈরী হলো নতুন ইতিহাস

২ টা ৪৩ মিনিটে উড়ে গেল চাঁদের উদ্দেশ্যে চন্দ্রযান-২। শ্রীহরিকোটা সতীশ ধাওয়ান স্পেস সেন্টার থেকে। মাত্র ১৬ মিনিটের মধ‍্যেই পৌছে যাবে তার নির্দিষ্ট কক্ষপথে। জিএসএলভি মার্ক-৩ এর মাধ‍্যমে পাঠানো হল এই চন্দ্রযান-২। ইসরোর সবচেয়ে শক্তিশালী রকেটের মাধ‍্যমে তা পাঠানো হল।

এই চন্দ্রযান-২ তে থাকছে অর্বিটার, বিক্রম নামের ল‍্যান্ডার ও প্রজ্ঞান নামের রোভার। সেপ্টেম্বর এর প্রথম দিকেই পৌছে যাবে চাঁদের বুকে। প্রায় ১,০০০ কোটি টাকা খরচ হয়েছে এর জন‍্য।

চন্দ্রযান-২ এর ওজন ৩.৮ টন এর অর্বিটার চাঁদের পৃষ্ঠের ছবি তুলবে,ম‍্যাপিং করবে। আর ল‍্যান্ডার চাঁদের ভূমিকম্পের ও চাঁদের তাপমাত্রার পরীক্ষা করবে।

আর প্রজ্ঞান ২৭ কিলোগ্রাম এর। এর মূল কাজ চাঁদের মাটি পরীক্ষা করবে। এটি ছয় চাকার একটি যান। এটি চাঁদের দক্ষিণ প্রান্তের মাটি পরীক্ষা করবে। ১৪ দিনের মধ‍্যে আধ কিলোমিটার জুড়ে কাজ করবে এই রোভার প্রজ্ঞান।

ইসরোর কর্তা ডঃ শিভান জানিয়েছে যে এর আগে কোনোদেশ চাঁদের দঃপ্রান্তে পৌছোতে পারেনি। আমরাই প্রথম। যদি এটা সফল হয় তবে ভারত চতুর্থ স্হান দখল করবে। চাঁদের বুকে স‍্যাটালাইট পাঠানোর দিক দিয়ে।