ভারতীয় যুবককে সীমান্ত থেকে তুলে নিয়ে গিয়ে নিগৃহীত করলো বাংলাদেশের পুলিশ

125
ভারতীয় যুবককে সীমান্ত থেকে তুলে নিয়ে গিয়ে নিগৃহীত করলো বাংলাদেশের পুলিশ

ভারতের এক যুবককে তুলে নিয়ে গিয়ে মারধরের অভিযোক ওঠে বাংলাদেশের পুলিশ এর বিরুদ্ধে।এই বিষয়ে ভারত-বাংলাদেশ সীমান্তে দুই দেশের আধিকারিকদের মধ্যে ফ্ল্যাগ মিটিং হয়।

পুলিশ সূত্রের খবরে জানা যায়,কাঁটাতারের ওপারে কিছু ভারতীয় নাগরিকের বাস ,যাদের কাছে ভারতীয় ভোটার কার্ড এবং প্যান কার্ড ছিল।একে একে তারা সবাই এদেশেই চলে আসলেও সুমন শেখ নামে এক ব্যক্তি আর্থিক সমস্যার জন্য এদেশে আসতে পারেননি।জানা যায় গত ১১ ই জুলাই রাতে তার বাড়িতে বাংলাদেশের পুলিশ হামলা করে এবং তাকে তুলে নিয়ে গিয়ে মারধর করে বলে অভিযোগ। মথুরাপুর গ্রাম এর বাসিন্দারা বিএসএফ ক্যাম্পে গিয়ে বিষয় টি জানান।এরপরেই দুদেশের মধ্যে ফ্ল্যাগ মিটিং হয় এবং বাংলাদেশ পুলিশ অভিযোগটিকে অস্বীকার করেন।বাংলাদেশ পুলিশের দাবি সুমন শেখ এর কাছে কোনো বৈধ কাগজপত্র ছিলনা।

মুর্শিদাবাদের সাংসদ আবু তাহের বিষয়টি জানতে পেরে সহযোগিতার আশ্বাস দিয়েছেন।তিনি বলেছেন ঘটনাটি খুব দুঃখজনক।যুবককে গাঁজার মামলায় ফাঁসানো হয়েছে বলে অনুমান ।তিনি এও বলেছেন ,পুরো বিষয়টি মঙ্গলবার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকে জানাবেন এবং মুখ্যমন্ত্রীকেও জনাবেন বলে আশ্বাস দিয়েছেন।সেই যুবক কে ঠিক কোন অভিযোগ এ প্রেফতার করা হয়েছে তার কোনো কাগজপত্র এদেশের হাতে তুলে দিতে পারেনি বাংলাদেশ পুলিশ।এগুলি কাটিয়ে ঠিক কতদিন পর এদেশে ফিরবে সুমন শেখ তারই অপেক্ষায় রয়েছে তার পরিবার।