আর ধর্না নয়, শিক্ষামন্ত্রীর হুঁশিয়ারী শিক্ষকদের

194
শিক্ষামন্ত্রীর হুঁশিয়ারী শিক্ষকদের

বেতবৃদ্ধির দাবি দীর্ঘদিনের। কিন্তু, তা পূরণ হয়নি। এর আগে আন্দোলন করেও ফল মেলেনি। তার বদলে জুটেছিল মারধর, হেনস্থা। গত ২৪শে জুন রাজপথের চিত্রটা সকলেরই চেনা। উস্তি ইউনাইটেড অ্যাসোসিয়েশনের তরফ থেকে বেতন বৃদ্ধির দাবি নিয়ে আন্দোলনে রাজপথে পা মিলিয়েছিলেন রাজ্যের হাজার হাজার প্রাথমিক শিক্ষক। আন্দোলন মাটি হলেও শিক্ষামন্ত্রী অ্যাসোসিয়েশনের সদস্যদের সঙ্গে বৈঠক করেন এবং সেখানেই পনের দিন সময়ের মধ্যে শিক্ষকদের দাবি পূরণের আশ্বাস দেন শিক্ষামন্ত্রী। কিন্তু চূড়ান্ত সময়সীমা পেরিয়ে গেলেও দাবি না পূরণ হওয়ায় বৃহত্তর আন্দোলনের হুঁশিয়ারি দেন প্রাথমিক শিক্ষকরা। সেই মতো শুক্রবার চূড়ান্ত সময়সীমা অতিক্রান্ত হওয়ার পর রাতভর দাবি পূরণের দাবিতে ধরনায় বসেন প্রাথমিক শিক্ষকরা। শনিবারের মধ্যে দাবি না মানলে অনির্দিষ্ট কালের জন্য অনশনের কথা জানান তাঁরা কিন্তু তার আগেই শিক্ষকদের আন্দোলন বরদাস্ত না করার হুমকি দেন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়। এক সাংবাদিক বৈঠক থেকে রাজ্য সরাকারের অবস্থান স্পষ্ট করেছেন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়৷ তাই আন্দোলনকারী শিক্ষকদের বিরুদ্ধে ব্য়বস্থা নেওয়ারও ইঙ্গিত দিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী। শুধু তাই নয় উন্নয়ন ভবনের সামনে অবস্থান নিয়ে কঠোর পদক্ষেপও নেওয়া হতে পারে বলে খবর।
প্রসঙ্ত, শুক্রবার থেকেই রাজপথ আগলে ধরনায় বসেছেন রাজ্যের প্রাথমিক শিক্ষকদের বৃহদাংশ। ১৪ জন শিক্ষকদের বদলি সহ বেতন বৈষম্য না বন্ধ হলে আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার হুমকি দেন উস্থি ইউনাইটেড প্রাইমারি টিচার্স ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েশনের সম্পাদিকা পৃথা বিশ্বাস। শুধু তাই নয় দাবি পূরণ না হলে চরম সিদ্ধান্ত নিতে পিছপা হবেন না তাঁরা এমটাও জানিয়েছেন পৃথা।