সুখী থাকতে হলে যেসব চিন্তা বাদ দিতে হবে.. জেনে নিন

374
সুখী থাকতে হলে যেসব চিন্তা বাদ দিতে হবে

অধিকাংশ নেতিবাচক অনুভূতি সৃষ্টি হয় অযৌক্তিক বা ভুল ধারণা থেকে। এ বিষয়ে চিকিৎসক ও মনোবিদেরা একমত। তাঁদের মতে, ভালো বা সুখী থাকার জন্য ইতিবাচক ও সঠিক চিন্তা করা প্রয়োজন। কিছু সাধারণ ভুল ধারণা আছে, যা মানুষের সুখের পথে বাধা হয়ে দাঁড়ায়। এমনই কিছু ভুল ধারণার কথা জানিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের মনোবিদ অ্যালবার্ট এলিস।

মনমতো না হলে মহাপ্রলয়:– সবকিছু মনমতো হওয়া চাই-ই চাই—অনেকের মধ্যে এমন একটা প্রবণতা আছে। কিন্তু আদৌ কি তা সম্ভব? সব কাজ সব সময় মনমতো নাও হতে পারে। তাই বলে বিষয়টি নিয়ে সারাক্ষণ হাঁসফাঁস করার কোনো মানে নেই। ইচ্ছার বিরুদ্ধের ফলগুলো গ্রহণ করতে শিখুন। সম্ভাব্য সব ধরনের পরিস্থিতির জন্য মনকে প্রস্তুত রাখুন।

আপনাকে সবাই পছন্দ করবে:- অনেকেই মনে করেন, সবাই তাঁকে পছন্দ করবেন। কিন্তু বাস্তবে তা হয় না। খুব স্বাভাবিকভাবেই সবাই সবার পছন্দের পাত্র হন না। আর সবার পছন্দের পাত্র যে হতেই হবে, এমন ভাবনাও ভুল।

আপনি সবকিছুর যোগ্য:- আপনাকে সবকিছু পারতে হবে, এমন কোনো কথা নেই। তা ছাড়া সবার পক্ষে সবকিছু করা সম্ভবও না। যে বিষয়টি বেশি উপভোগ করবেন, সে বিষয়টি মনোযোগ দিয়ে করুন।

সবাই বদলে গেছে:- আপনার কাছের মানুষজন সবাই বদলে গেছে—এমন ধারণা পোষণ করবেন না। আপনার চেয়ে সবাই বেশি সুখী, এটা ভাবাও ঠিক নয়। এ ধরনের ভাবনা থেকে হতাশা পেয়ে বসে।

বিপদ নিয়ে আগাম দুশ্চিন্তা:- বড় ধরনের বিপদ আসতে পারে ভেবে অনেকেই আগাম দুশ্চিন্তা করেন। আগাম দুশ্চিন্তায় হয়রান বাড়ে, বাড়ে মানসিক চাপ। অনেক সময় দেখা যায়, যে বিষয় নিয়ে ব্যাপক দুশ্চিন্তা করেছেন, তা শেষ পর্যন্ত ঘটেইনি। তাই সম্ভাব্য বিপদ নিয়ে দুশ্চিন্তা না করে বরং পরিস্থিতি মোকাবিলার প্রস্তুতি নেওয়া ভালো।

অতীতই সবকিছু:- অতীতের কোনো কিছুই বদলাতে পারবেন না। কিন্তু বর্তমান ও ভবিষ্য নিয়ে অনেক কিছু করার আছে। অতীতে যা ঘটেছে, তা নিয়ে পড়ে থেকে বর্তমান নষ্ট করবেন না। সামনে এগিয়ে যান।

দায়িত্ব ও কঠিন সময় এড়ানো:- সুখের জন্য অনেকে জীবনের দায়দায়িত্ব ও কঠিন সময় এড়িয়ে চলতে চান। কিন্তু এতে সুখ আসে না। দায়িত্ব পালনের মধ্যে বাহাদুরি আছে। সংকট মোকাবিলার মধ্যে বীরত্ব আছে। দায়িত্ব নিয়ে আত্মবিশ্বাসের সঙ্গে পথ চলাতেই জীবনের আনন্দ।

বসে থাকলে সুখ আসে:- চুপচাপ বসে থাকলে সুখ আসবে, এই ধারণা ভুল। অলস মস্তিষ্কে নানান চিন্তা বাসা বাধে। সুখ নষ্ট করে দেয়। ভালো থাকতে নিজেকে সক্রিয় রাখুন। কিছু না কিছু কাজ করুন। নিয়মিত ব্যায়াম, সৃজনশীলতার চর্চা, নতুন মানুষের সঙ্গে মেশা, নতুন কিছু শেখার মতো বিষয়গুলো সুখ বাড়িয়ে দেয়।