দায়িত্ব পেয়েও তা পালন করতে না পারায় মুখ্যমন্ত্রীর তীব্র ভর্তসনার মুখে পড়লেন অরূপ বিশ্বাস

57
দায়িত্ব পেয়েও তা পালন করতে না পারায় মুখ্যমন্ত্রীর তীব্র ভর্তসনার মুখে পড়লেন অরূপ বিশ্বাস

লোকসভা নির্বাচনে খারাপ ফলের কারণ পর্যালোচনা করার জন্য শুক্রবার কালীঘাটে দলীয় নেতাদের নিয়ে কোর কমিটির বৈঠক ডাকেন মুখ্যমন্ত্রীর মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আর সেখানেই মুখ্যমন্ত্রীর রোষে পড়েন তৃণমূলের একাধিক নেতা নেত্রী ও মন্ত্রীরা। নির্বাচনে খারাপ ফল হওয়ার জন্য বীরভূমের জেলা সভাপতি অনুব্রত মণ্ডল থেকে অরূপ বিশ্বাস কিংবা উত্তরবঙ্গের উন্নয়ের মন্ত্রী গৌতম দেব সকলকেই মুখ্যমন্ত্রীর সমালোচনার মুখে পড়তে হয়। অনেককে আবার এ দিনের দায়িত্ব থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়। কোন সদস্যের কথায় দুর্বলতা কী কী ভাবে দায়িত্ব পালন করেননি সবকিছুর পুরোদস্তুর বিচার বিবেচনা করে তা সরাসরি জানিয়ে দেন এ দিনের বৈঠকে।

বৈঠক শুরু হওয়ার পর সবার আগে মুখ্যমন্ত্রীর চোখ পড়ে অরূপ বিশ্বাসের দিকে। দায়িত্ব পেয়েও তা পালন করতে না পারায় তীব্র নিন্দা করেন মুখ্যমন্ত্রী, শুধু তাই নয় এ দিন সপ্তদশ লোকসভার নির্বাচনে খারাপ ফল হওয়ায় অসীমা পাত্র তপন দাশগুপ্ত সহ একাধিক হেভিওয়েট নেতা নেত্রীদের বিরুদ্ধে অসন্তোষ প্রকাশ করেন। প্রসঙ্গত উত্তরবঙ্গের বেশ কয়েকটি জেলা এবং হুগলির সহ দুই বর্ধমানের কেন্দ্রও অরূপ বিশ্বাসের দায়িত্ব ছিল আর সেখানে সেখানেই তৃণমূলের হার হয়েছে বিপুল ভোটে আর সেটাই মেনে নিতে পারছেন না মুখোমুখি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

তাই এ দিনের বৈঠকে তিনি সরাসরি অরূপ বিশ্বাসকেই কার্যত তুলোধোনা করেন। এতগুলো জায়গায় দায়িত্ব পেয়েও তিনি যে ফেল করেছেন এই বিষয়টিও মুখ্যমন্ত্রী অরূপ বিশ্বাসকে সরাসরি চোখে আঙুল দিয়ে দেখিয়ে দেন। বৈঠকে মুখ্যমন্ত্রী, “এতগুলো জেলার দায়িত্ব দিয়েছিলাম। বলেছিলাম, ভাল করে কাজ কর। যখনই জিজ্ঞেস করেছি, বলেছিস, সব ঠিক আছে। কিন্তু একেবারে ফেল করলি” -ঠিক এই ভাষাতেই তোপ দাগেন। তাই অরূপ বিশ্বাসের দায়িত্বে থাকা এই সমস্ত জায়গাগুলিতে তৃণমূলের পরাজয় অরূপ বিশ্বাসের ব্যর্থতার কারণ বলে মনে করছেন তৃণমূল সুপ্রিমো।

শুধু অরূপ বিশ্বাসকে ধমকিয়ে খান্ত থাকেন নি মুখ্যমন্ত্রী বরণ হুগলি জেলায় এমন অপ্রত্যাশিত ফলের জন্য অসীমা পাত্রকে তুলোধনা করতে ছাড়েননি তিনি। পরাজয়ের কারণ জানতে চান অসীমা পাত্রের কাছে কিন্তু অসীমা পাত্র দলীয় অন্তর্দ্বন্দ্ব কেই তুলে ধরলেও সেটা যে অসীমা পাত্রের ভুল তাও তিনি ব্যাখ্যা করেন। প্রসঙ্গত শুক্রবার তৃণমূলের কোর কমিটির বৈঠকে একাধিক নেতা মন্ত্রীর দায়িত্ব বদলানো হয়েছে পাশাপাশি দায়িত্ব থেকে সরানো হয়েছে অনেককেই। বিধানসভা নির্বাচনে ভাল ফল করার জন্য সংগঠনের এক বিরাট বদলে দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী।