শরীরে যদি পরিবর্তন আনতে চান তাহলে কয়েকদিন ডাবের জল পান করুন …

294
শরীরে যদি পরিবর্তন আনতে চান তাহলে কয়েকদিন ডাবের জল পান করুন ...

আমাদের দেশের আবহাওয়া বড়ই অদ্ভুত। প্রকৃতি কখন কি রূপ দেখায় তা আমরা কেউই জানিনা। প্রকৃতি যেমন গরমে কষ্ট দেয়, তেমনই কষ্ট লাঘবের উপায়ও দিয়েছে। তেমন একটি হল ডাবের জল। ডাবের জল একটি প্রাকৃতিক পানীয়। প্রকৃতির এই অদ্ভুত খেলায় নিজে থেকেই তৈরি হয় এই জল, যা আমাদের পান করার উপযুক্ত এবং যার অনেক রকম গুন। এর স্বাদও অতুলনীয়।

১। ডাবের জল শুধু পানীয় হিসাবে কাজ করেনা, ডাবের জল হল অনেক রোগের মহৌষধি। কিডনিতে পাথর, আলসার, গ্যাস্ট্রাইটিস, মূত্রনালীর কোন সংক্রমণ, ডাইরিয়া ইত্যাদি অনেক রোগে ডাক্তাররা ডাবের জল পান করার পরামর্শ দেন।

২। আমাদের শরীরে কোথাও কেটে গেলে আমরা সবার প্রথমে অ্যান্টিসেপ্টিক লাগাই বা ওষুধ খাই। কিন্তু কাটা স্থানে যদি ডাবের জল দিয়ে দেওয়া যায় তাহলে আর কোন কিছুরই দরকার পড়েনা। সেটাই অ্যান্টিসেপ্টিকের কাজ করে।

৩। ডাবের জলে আছে পটাশিয়াম, ক্যালশিয়াম, ভিটামিন সি, কার্বোহাইড্রেট সহ নানা উপকরণ যা পান করার সাথে মুখে মাখলেও মুখের অবাঞ্ছিত দাগ দূর হয়ে যায়। যেমন মুখের ব্রন বা পক্সের দাগ খুব সহজেই দূর হয়ে যায়। বাজারের কোন রাসায়নিক ক্রিম ব্যবহার করার দরকার পড়েনা।

৪। অনেকেরই হয়তো জানা নেই যে ডাবের জল নিয়মিত পান করলে কমে যায় শরীরের অপ্রয়োজনীয় মেদ। ফলে আপনি সহজেই অত্যাধিক ওজনের হাত থেকে মুক্তি পেতে পারেন ডাবের জলের সাহায্যে।

৫। ডাবের জল ক্লান্ত তৃষ্ণার্ত মানুষকে যেমন রিফ্রেশ করে, তেমনই শরীরে পর্যাপ্ত পরিমাণে লবণের মাত্রা বজায় রাখে। তাই সেলাইনের বদলে যদি ডাবের জল ব্যবহার করা যায় তাহলে তা খুব লাভজনক।

৬। ডাবের জল যে কোন স্পোর্টস ড্রিঙ্কের থেকে অনেক বেশি ভালো। এতে থাকে প্রচুর পরিমাণে পটাশিয়াম ও খনিজ পদার্থ, যা কলাতেও থাকেনা। তাই স্পোর্টস ড্রিঙ্কের থেকে ডাবের জল অনেক বেশি উপকারী।

৭। ডাবের জলে থাকে প্রচুর ক্যালোরি শক্তি। প্রতি ১০০ গ্রামে ১৬.০৭ ক্যালোরি শক্তি থাকে। আর ডাবের জল খাওয়া হয়ে গেলে তার যে শাঁস থাকে সেটা খেতেও আমরা খুব ভালোবাসি। সেটা খুব সুস্বাদু হয়। আর তাতেও অনেক ক্যালোরি শক্তি থাকে।

শরীরের নানা রকম সমস্যা দূর করতে টানা সাতদিন ডাবের জল পান করুন। আর গরমে মাঝে মাঝেই খেতে পারেন এই পানীয়। এটি আপনার শরীরের সতেজতা বৃদ্ধি করবে সাথে বিভিন্ন রোগ থেকে আপনাকে দুরে রাখবে।