রতন টাটার গাড়ির নম্বর প্লেট ব্যবহার করে প্রতারণার মামলায় গ্রেফতার মহিলা

91

মনের আনন্দে গাড়ির নম্বর প্লেট লাগিয়ে ঘুরে বেড়াচ্ছিল, স্বাভাবিকভাবেই এতে আনন্দের কিছুই নেই। তবে যেখানে রয়েছে সংখ্যার মারপ্যাঁচ। মুম্বাইয়ের মত শহরে একেবারে এই গাড়ির নম্বর প্লেট নিয়েই দেদার ঘুরে বেড়াচ্ছিলেন তিনি, এতদিন চোখে পড়েনি কারোর। তবে ট্রাফিক রুল ভাঙতেই সমস্ত গোপন তথ্য বেরিয়ে আসে একের পর এক। মোটকথা এতদিনে ভুয়ো নাম্বার প্লেট নিয়ে ঘুরে বেড়াচ্ছিলেন তিনি, কিন্তু যেই সেই মানুষের নাম্বার প্লেট নয় সেটা, একেবারে টাটা কোম্পানির কর্ণধার রতন টাটার গাড়ির নাম্বার।

সম্প্রতি মুম্বাইয়ের ওরলিতে এক মহিলা ট্রাফিক রুল ভাঙতেই সমস্ত তথ্য বেরিয়ে আসে প্রকাশ্যে। ট্রাফিক পুলিশ তার গাড়ির নম্বর এ চালান কাটতেই সোজা সেটা পৌঁছে যায় রতন টাটার অফিসে। আর তার পরেই জানা যায় আসলে সেই নম্বর তার নয়, সেটা রতন টাটার নিজের গাড়ির। এর পরেই পুলিশি তদন্তে এবং জেরায় মহিলা কৈফিয়ত দেয় যে, আসলে তিনি জানতেন না এটা রতন টাটার নাম্বার। এদিকে সংখ্যাবিদেরা জানিয়েছেন হয়তো সফলতা পেতে এই তিন ইচ্ছে করেই লাগিয়েছিলেন এই নম্বর প্লেট।

স্বাভাবিকভাবেই এই কথা শুনতে নারাজ মুম্বাই পুলিশ, যার জন্যই জেরা করার জন্য ডেকে পাঠানো হয়েছে তাকে। পুলিশ সূত্রে জানা যায়, নিয়ম লঙ্ঘন করার পরেই রতন টাটার নামে ই চালান পাঠানো হয় তার দপ্তরে।কিন্তু সেখান থেকে স্পষ্ট জানিয়ে দেওয়া হয় যে তাদের কোনো গাড়ি নিয়ম লঙ্ঘন করেনি। এরপরেই পুলিশ বিভিন্ন সিসিটিভি ফুটেজ খুঁজে দেখতে থাকে এবং জানার চেষ্টা করে, কোথা থেকে ইস্যু করা হয়েছে এই চালান। তদন্ত চলাকালীন জানা যায় এটি আসলে একটি বেসরকারি সংস্থার গাড়ি এবং এর মালিক একজন মহিলা।আর এতে স্পষ্ট হয়ে যায় যে এতদিন নিজের নম্বর প্লেট খুলে ভুয়া নম্বর প্লেট লাগিয়ে ঘুরছিলেন তিনি। ইতিমধ্যে মামলা রুজু করা হয়েছে সেই মহিলার নামে।