নেতাদের জন্য “পাত্রী চাই”-র বিজ্ঞাপন ফেসবুকে, তুমুল ভাইরাল

30

ফেসবুক জুড়ে এখন বাংলার এক “অকৃতদার” রাজনৈতিক নেতার জন্য পাত্রী খোঁজার পালা চলছে। এই মর্মে “পাত্রী চাই” বিজ্ঞাপনও দেওয়া হয়েছে সোশ্যাল প্ল্যাটফর্মে। পাত্রের চারিত্রিক বৈশিষ্ট্য এবং তার সম্পত্তির হিসেবও এই বিজ্ঞাপনে তুলে ধরা হয়েছে। পাত্রের চারিত্রিক বৈশিষ্ট্য হলো, তিনি “দালাল”, “জোচ্চোর”, “বেইমান”, “অকৃতজ্ঞ”! তার অন্যান্য গুণাবলীর মধ্যে তিনি মঞ্চে দাঁড়িয়ে সর্বক্ষণ “আমি অকৃতদার” বলে চিৎকার করেন!

তবে পাত্রের বিষয়-আশয় কিন্তু অনেক রয়েছে। ৯টি পেট্রোল পাম্প, কলকাতার বুকে চারটি ফ্ল্যাট, তৃণমূলের অধীনে এক সময় ৩৫টি পদের অধিকারীও ছিলেন তিনি। তবে এখন অবশ্য তিনি নিজেকে “বঞ্চিত” বলেই মনে করেন। এই মর্মেই সোমবার ফেসবুকে একটি বিজ্ঞাপন দিয়েছেন তৃণমূলের মুখপাত্র সুদীপ রাহা। কালো ব্যাকগ্রাউন্ডের উপর বড় বড় হরফে লিখে রেখেছেন “পাত্রী চাই”। তার নিচে পাত্রের এহেন বিবরণ। এমন কি আর মন্দ ছেলে!

সোশ্যাল মিডিয়ায় এই প্রসঙ্গে জোর জল্পনা শুরু হয়েছে। সুদীপ রাহা যে এভাবে নাম না করে কার্যত সদ্য দলত্যাগী শুভেন্দু অধিকারীকেই খোঁচা দিয়েছেন, সে সম্পর্কে নিশ্চিত রাজনৈতিক মহল। তৃণমূলের মুখপাত্রের বয়ান অনুসারে, সারা রাজ্যের মানুষ যখন বাস ভাড়া বৃদ্ধি নিয়ে চরম নাজেহাল হচ্ছেন, বাসের মালিকেরা সমাধান খুঁজছেন, সেই সময় তার টিকিটিও খুঁজে পাওয়া গেল না। রাজনৈতিক মঞ্চে দাঁড়িয়ে এখন তিনিই (শুভেন্দু অধিকারী) বারবার নিজেকে অকৃতদার বলে তুলে ধরছেন!

শুভেন্দু অধিকারী প্রসঙ্গে তাঁর বক্তব্য অবশ্য এখানেই শেষ নয়। সুদীপ রাহার সাফ বক্তব্য, উনি “মেদিনীপুরের কুলাঙ্গার”! ওনার মুখে মাতঙ্গিনী হাজরা, সতীশ সামন্ত, বিদ্যাসাগরের নাম মানায় না বলেই দাবি করেছেন তৃণমূলের মুখপাত্র। উল্লেখ্য, মেদিনীপুরের ৩৫টি আসনে বিজেপির জয় সম্পর্কে নিশ্চিত শুভেন্দু অধিকারীকে কার্যত চ্যালেঞ্জ করে সুদীপ রাহা বলেছেন, মেদিনীপুরের একটি আসনও বিজেপি জিততে পারবে না। শুভেন্দু অধিকারী যে আসনেই দাঁড়ান না কেন, নিশ্চিত ভাবে হারবেন।