ডাক্তাররা আমার মৃত্যুর খবর দিতে প্রস্তুত ছিলেন, ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী ভয়ানক অভিজ্ঞতার কথা স্বীকার করলেন

4413
ডাক্তাররা আমার মৃত্যুর খবর দিতে প্রস্তুত ছিলেন, ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী ভয়ানক অভিজ্ঞতার কথা স্বীকার করলেন

করোনার আক্রান্ত হয়েছিলেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন। সুস্থ হয়েছেন তিনি। অভিজ্ঞতার কথা জানালেন তিনি। চিকিৎসকরা তাঁর মৃত্যু ঘোষণা করার জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিয়ে রেখেছিলেন, এমনটাই জানিয়েছেন তিনি। তিনি বলেছেন, সেই সময়টা কঠিন ছিল। তিনি সেটা অস্বীকার করছেন না বলে জানান। তিনি আরও বলেন, তবে চিকিৎসকরা যেকোনও কঠিন পরিস্থিতি লড়াইয়ের জন্যই স্তালিনের মৃত্যুকালীন অবস্থার মতো ব্যবস্থা করে রেখেছিলেন।

এক সপ্তাহ আইসলেশনে থাকার পর তাঁকে ৫ এপ্রিল হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। কিন্তু ২৪ ঘন্টার মধ্যে তাঁর অবস্থার অবনতি ঘটে। তাঁকে তিনদিন অক্সিজেন সরবরাহ করা হয় এবং ভেন্টিলেশনে রাখা হয়। ১২ এপ্রিল সুস্থ হয়ে ওঠেন তিনি।তিনি বলেছেন, তাঁর এক মুহুর্তের জন্যও মনে হয়নি তিনি মরে যাবেন। কিন্তু চিকিৎসকরা তৈরি ছিলেন। তাঁকে লিটারের পর লিটার অক্সিজেন দিতে হয়েছিল, কিন্তু সুস্থ হয়ে কাজে যোগ দিয়েই সুখবর পান বরিস।

তাঁর স্ত্রী এক পুত্র সন্তানের জন্ম দেন। তবে যাঁরা তাঁর চিকিৎসা করেছিলেন বারবার তিনি ধন্যবাদ জানিয়ে গিয়েছেন তাঁদের। তাই দুই চিকিৎসক নিক প্রাইস এবং নিক হার্টের নামেই নিজের সন্তানের নাম দিয়েছেন। তাঁর স্ত্রী সোশাল মিডিয়ায় নিজের ছেলের নাম পোস্ট করে লিখেছিলেন, হার্ট অ্যান্ড প্রাইস সেভড বরিস। তিনি তাঁর দেশকে করোনা লড়াইয়ে জয়ী দেখতে চান। ইতিমধ্যে তিনি ধাপে ধাপে লকডাউন তুলে দেওয়ার কথা ভেবেছেন।