অ্যান্টিবায়োটিক জীবাণুর কবল থেকে বাঁচতে সাবধানে থাকুন, না হলেই বিপদ ঘটে আসবে

92
অ্যান্টিবায়োটিক জীবাণুর কবল থেকে বাঁচতে সাবধানে থাকুন, না হলেই বিপদ ঘটে আসবে

প্রাচীন কালে, দূষণ মুক্ত পরিবেশে রোগ জীবাণুর ভয় ছিল না বললেই চলে৷ তবে বর্তমানে যেমন বেড়েছে দূষণের মাত্রা তেমনই বেড়েছে নানা ধরনের অজানা ব্যাকটেরিয়া৷ এই নাম না জানা ব্যাকটেরিয়া গুলি ক্ষমতায় অত্যন্ত শক্তিশালী৷ ব্যাকটেরিয়ার কথা মাথায় আসলেই আমরা নিশ্চিন্ত হয়ে যাই অ্যান্টিবায়োটিক এর কথা ভেবে৷

অ্যান্টিবায়োটিক কয়েক ধরনের জৈব-রাসায়নিক ঔষধ যা অণুজীবদের, বিশেষ করে ব্যাক্টেরিয়া নাশ করে এবং তাদের বৃদ্ধিরোধ করে। অ্যান্টিবায়োটিক সাধারণভাবে ব্যাক্টেরিয়ার বিরুদ্ধে ব্যবহার হয়, ভাইরাসের বিরুদ্ধে কাজ করে না। কিন্তু তবে এখন অ্যান্টিবায়োটিক প্রতিরোধী ব্যাকটেরিয়ার প্রকোপ বাড়ছে৷

সে ক্ষেত্রে রোগীর চিকিৎসা কঠিন হয়ে পড়ে৷ যে ব্যাকটেরিয়া বেশ কিছু অ্যান্টিবায়োটিকের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তোলে, তা জীবন বিপন্ন করতে পারে৷ বিশেষ করে যেসব রোগীর রোগ প্রতিরোধক্ষমতা দুর্বল, তাঁদের ক্ষেত্রে এই ঝুঁকি অত্যন্ত বেশি৷ তখন সাধারণ চিকিৎসায় কাজ হয় না৷

সুপারবাগ সংক্রমণ ঘটলে চিকিৎসা অত্যন্ত কঠিন হয়ে পড়ে৷ এই ধরনের ব্যাকটেরিয়া মূত্রনালী বা রক্তধারায় সংক্রমণ ঘটাতে পারে৷ রোগী খুব অসুস্থ থাকলে তা আরো বিপজ্জনক হতে পারে৷ অ্যান্টিবায়োটিকপ্রতিরোধী ব্যাকটেরিয়ার ক্ষেত্রে খুব বেশি চিকিৎসার পদ্ধতি অবশিষ্ট থাকে না৷

অ্যান্টিবায়োটিকের মাত্রাতিরিক্ত প্রয়োগের ফলে এই সমস্যা বাড়ছে বলে বিশেষজ্ঞরা মনে করেন৷ গবেষকেরা জলপাইগুড়ি এবং দক্ষিণ ২৪ পরগনায় দেশি শূকর, ক্রয়লার মুরগিতে পাওয়া গেছে অ্যান্টিবায়োটিক প্রতিরোধী জীবাণুর অস্তিত্ব। দূষিত, অপরিচ্ছন্ন, স্যাঁতসেঁতে পরিবেশে এই জীবাণু গুলি বেঁচে থাকে বলে মনে করি। সুতরাং এই পরিবেশ থেকে সাবধানে থাকতে হবে|
Tags # health # lifestyle # prevension