জেনে রাখুন বাইপাস সার্জারির হাত থেকে কিভাবে রক্ষা পাবেন ?

95
জেনে রাখুন বাইপাস সার্জারির হাত থেকে কিভাবে রক্ষা পাবেন ?

হার্টের ব্লকের চিকিৎসায় সাধারণত বাইপাস সার্জারি করা হয়। বাইপাস সার্জারি করার কথা ভাবলেই আমাদের মাথার আসে নিজের আর্থিক অবস্থার চিন্তা। যদি কোনো ব্যাক্তি ধূমপায়ী হয়, এর সঙ্গে যদি আবার ডায়াবেটিস যোগ হয়, এর সঙ্গে যদি একটি উচ্চ রক্তচাপ যোগ হয়, এর সঙ্গে যদি রোগ অস্বাস্থ্যকর খাবার যোগ হয়, সবকিছু মিলিয়ে তখন তার হার্ট ব্লকের লক্ষণ বেড়ে যায়।

হার্ট তখন দুর্বল হয়ে যায় আর সেই সময়ে বাইপাস সার্জারির মত পদক্ষেপ নিতে হয়। রক্ত সঞ্চালনের বিকল্প পথ তৈরিতে ‘বাইপাস সার্জারি’ করতে হয়। এটাও ওপেন হার্ট সার্জারি। তবে এই সার্জারি হাত থেকে রেহাই পেতে পারেন এবার। তবে তার জন্য কিছু নিয়ম মেনে চলা খুব জরুরী।

সপ্তাহে ৫–৭ দিন কম করে ২০–৩০ মিনিট ব্যায়াম করতে হবে, যাতে হার্টকে তার সক্ষমতার সীমা অতিক্রম করতে হয়, তার জন্য এমন গতিতে হাঁটতে হয় যাতে ঠাণ্ডার মধ্যেও অল্প ঘাম হয় ও হাঁপিয়ে হলেও দু’চারটে কথা বলা যায়৷ এই গতিবেগ ধরে রাখতে হয় কম করে ২০–৩০ মিনিট৷ তার পর আস্তে আস্তে কমাতে হয় গতি৷

যাঁরা সাঁতার কাটেন, সাইকেল চালান, ঘাম ঝরানো খেলাধুলা করেন বা নাচেন, তাঁরাও যদি ২০–৩০ মিনিট এভাবে হার্টরেট ধরে রাখতে পারেন, কাজ হয়৷ এছাড়াও আরো এক বিকল্প পদ্ধতিও রয়েছে যা ইইসিপি নামে পরিচিত।

ইইসিপি হলো এমন এক কাটাছেঁড়াবিহীন ও ওষুধবিহীন পদ্ধতি যা মোটামুটি ৩৫টি সিটিংয়ের মধ্যে বুকব্যথা ও হার্ট ফেলিওরে আক্রান্ত রোগীর সমস্যার সুরাহা করে৷ রক্তচাপ মাপার সময় যেমন পট্টি দিয়ে হাতের উপরের অংশ কষে বাধা হয়, এখানে তেমন পট্টি বাধা হয় পায়ের কাছে, হাঁটুর ওপরের অংশে ও থাইয়ে৷ হৃদস্পন্দন চলাকালীন হার্ট যখন রিল্যাক্সড হয় পট্টিগুলি একে একে দ্রুত ফুলে ওঠে৷ এই চাপ ওপর দিকে গিয়ে কোল্যাটারাল ধমনীগুলির মুখে রক্তচাপ বাড়ায়৷ সেই চাপে ধমনীগুলির মধ্যে একটু একটু করে রক্ত যেতে শুরু করে৷

ফলে মূল ধমনী বন্ধ থাকা সত্ত্বেও হার্টের পেশীতে শুরু হয় রক্ত সঞ্চালন৷ ক্রনিক স্টেবল অ্যানজাইনা থাকলে এই পদ্ধতিতে ভালো কাজ হয়৷ মোটামুটি বছর পাঁচেক তাঁরা ভালো থাকতে পারেন৷ তবে একে পুরোপুরি বাইপাস বা অ্যাঞ্জিওপ্লাস্টির বিকল্প বলা যায় না৷ শারীরিক কারণে অপারেশন না করা গেলে সাময়িকভাবে কষ্ট কমানোর জন্য ইইসিপি করা যেতে পারে | তবে রোগ ফেলে না রেখে সময়ে থাকতে ডাক্তারের পরামর্শ নিন।