ইতিহাস তৈরি করেছে চন্দ্রযান! বিস্তারিত

25
চন্দ্রযান ইতিহাস তৈরি করেছে, বলছে ইউরোপিয়ান স্পেস এজেন্সি

কয়েক ঘণ্টার জন্য যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে গেলেও শেষে কিন্তু অরবিটারের মাধ্যমেই চন্দ্রযান টু এর ল্যান্ডার বিক্রমের খোঁজ মিলেছে৷ চাঁদের কোনও হেলানো জায়গায় সেটি রয়েছে বলেই বিজ্ঞানীরা জানালেও দক্ষিণ মেরু ছুঁয়েছে এটি একেবারে নিশ্চিত৷ তবুও ল্যান্ডার বিক্রমের শারীরিক পরিণতির খোঁজ চালাচ্ছে ইসরো৷

ইসরোর বিজ্ঞানীরা জানিয়েছেন সফট ল্যান্ডিং হলে একেবারে নিশ্চিত ছিল সাফল্যের কিন্তু ক্র্যাশ ল্যান্ডিং হলে ল্যান্ডারের ফের জেগে ওঠার সম্ভাবনা কম৷ যদিও আশা ছাড়ছেন না বিজ্ঞানীরা৷ তবে চাঁদের দক্ষিণ মেরুতে চন্দ্রযান যতটা অবধি যেতে পেরেছে তা নাকি ইতিহাস এমনটাই বলছে ইউরোপিয়ান স্পেস এজেন্সি৷ তাঁদের মতে চাঁদের দক্ষিণ মেরুতে এতটাই ধুলো রয়েছে যা অতিক্রম করা খুব একটা সোজা কাজ নয়৷ এর আগেও ইউরোপিয়ান স্পেস এজেন্সি প্রস্তুতি নিয়েছিল কিন্তু সেটা শেষ মুহূর্তে বাতিল হয়ে গিয়েছিল৷

অন্যদিকে এখনও অবধি ইসরোর কন্ট্রোল রুমের স্ক্রিনের দিকে চোখ রেখেছে বিজ্ঞানীরা৷ 14 দিন সময়কালের মধ্যে যদি বিক্রম জেগে ওঠে এই আশাতেই প্রহর গুনছেন তাঁরা৷ দক্ষিণ মেরুতে ল্যান্ড করতে গেলে কী কী অসুবিধা হতে পারে তা নিয়ে ইউরোপিয়ান স্পেস এজেন্সির বিজ্ঞানীরা বলছেন যেহেতু সূর্যের অতি বেগুনি রশ্মি চন্দ্রপৃষ্ঠের দক্ষিণ মেরুতে সরাসরি আজ সে পড়ার সময় ধূলিকণাকে আঘাত করে তাই সেখানে অনু পরমাণু মিলে ধুলোর ঝড় হয় আর এখানেই রেডিয়েশনে বাধা পায় সমস্ত যান গুলি৷