তামার পাত্রে জল পানের উপকারিতা গুলি জেনে নিন এক নজরে

616
তামার পাত্রে জল পানের উপকারিতা গুলি জেনে নিন এক নজরে

বেঁচে থাকার জন্য জল অপরিহার্য। মানুষের শরীরের শতকরা ৭০ ভাগই জল। সুতরাং প্রতিদিনই আমাদের প্রচুর পরিমাণে জল পান করতে হয়। তবে অনেকে এই জল পান করার জন্য তামার পাত্র ও গ্লাস ব্যবহার করেন। আয়ুর্বেদ অনুযায়ী তামার পাত্রে রাখা জল শরীরের তিনটি সমস্যার মধ্যে (বাত, সর্দি, পিট্টা) সামঞ্জস্য বজায় রাখতে সক্ষম।তামার পাত্রে আট ঘণ্টা পর্যন্ত রাখা জল শরীরের পক্ষে খুব উপকারী। পুরো উপকার পেতে রাত্রিবেলায় তামার জগ বা গ্লাসে জল ঢেকে রেখে সকালবেলায় খালি পেটে এই জল পান করলে অনেক রকম লাভ পাওয়া যায়।

তামার পাত্রে জল পান করলে যেসব সুবিধা:-

১. তামার পাত্রে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট গুণ থাকে। যেটা ক্যান্সারের মতো গুরুতর রোগের বিরুদ্ধে মোকাবিলা করতে সাহায্য করে। আমেরিকান ক্যান্সার সোসাইটির মতে, তামার মধ্যে রয়েছে অ্যান্টিক্যানসার উপাদান। এটি ক্যান্সারের সূত্রপাত প্রতিরোধ করতে সাহায্য করে।

২. তামার পাত্রে জল পান করলে হাঁটুর ব্যথা এবং প্রদাহ সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়া যায়। এছাড়া বাতের সমস্যা থেকেও ত্রাণ দেয়।

৩. রোগ সৃষ্টিকারী ব্যাকটেরিয়া থেকে রক্ষা করে, শরীর সুস্থ রাখতে সহায়তা করে।

৪. নিয়মিত তামার পাত্রে রাখা জল পান করলে ত্বকে উজ্জ্বলতা আসে। ত্বকের সমস্যা দূর করতে কার্যকারী।

৫. তামা অর্থাৎ কপার সরাসরি শরীরে তামার অভাবকে সম্পূর্ণ করে। এর ফলে শরীরে রক্তের ঘটতি হয় না।

৬. তামার পাত্রে রাখা জলকে বিশুদ্ধ বলে মনে করা হয়। ডায়রিয়া, জন্ডিস এবং অন্যান্য রোগের ব্যাকটেরিয়াকে ধ্বংস করে।

৭. পেটের সমস্যা সমাধান করে। কোষ্ঠকাঠিন্য ও অম্লতার সমস্যায় জর্জিত হলে তামার পাত্রে রাখা জল পান করুন। এটা হজমেও সাহায্য করে।

৮. বর্তমানে সবচেয়ে বড় সমস্যা হলো স্থূলতা। শরীরের ওজন কমাতে তামার পাত্রে রাখা জল পান করতে পারেন। এই জল পান করলে শরীরের অতিরিক্ত চর্বি ঝরে যায়।